খাদ্য ও পুষ্টি

যে ১০টি কারনে নিয়মিত গাজর খাবেন

এমবিবিএস (৫ম বর্ষ), স্যার সলিমুল্লাহ্ মেডিকেল কলেজ।

শীতের সবজির মধ্যে অন্যতম হচ্ছে গাজর। অনেকে একে ফল বলেও গণ্য করেন। গাজরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ পাওয়া যায়। বিশেষ করে ভিটামিন এ’১০র ভালো উৎস এই সবজি। কাঁচা অবস্থায়, সালাদ বানিয়ে কিম্বা রান্না করেও গাজর খাওয়া যায়। নিয়মিত গাজর খেলে অনেক জটিল রোগ থেকে বেঁচে থাকা সম্ভব। চলুন গাজরের আরো কয়টি পুষ্টিগুণ জেনে নেই-

১. চোখের স্বাস্থ্য রক্ষায় গাজরের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গাজরে রয়েছে প্রচুর পরিমানে বিটা ক্যারোটিন যা পরবর্তীতে ভিটামিন এ-তে পরিবর্তিত হয়। এই ভিটামিন এ চোখের রেটিনার গঠনে সাহায্য করে। গাজর শিশুদের রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে।

২. গাজরে থাকা বিটা ক্যারোটিন এক ধরনের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। এটা আমাদের কোষকে অকাল মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করে। শরীর, মন আর ত্বকের সুস্থতা রক্ষায় তাই বেশি করে গাজর খান।

৩. গাজরে প্রচুর পরিমানে আঁশ রয়েছে। এ কারনে নিয়মিত গাজর খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য হবার সম্ভাবনা কমে যায়।

৪. গাজর ডায়াবেটিস রোগীদের রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রনে রাখে। ডায়াবেটিসজনিত জটিলতা এড়াতে তাই ডায়াবেটিস রোগীরা নিয়মিত গাজর খেতে পারেন।

আরো পড়ুন  শরীরের জন্য উপকারী ৬টি ফ্যাটি খাবার

৫. গাজর মরণব্যাধি ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। গাজরে রয়েছে ক্যানসার প্রতিরোধী ফ্যালকারিনল ও ফ্যালকারিডিওল যা ফুসফুস, স্তন, বৃহদান্ত্রের ক্যানসার প্রতিরোধ করে।

৬. গবেষণায় দেখা গেছে, গাজর খেলে রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা সহনীয় পর্যায়ে থাকে। ফলে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে।

৭. গাজর ভাল জীবাণুনাশক হিসেবেও কাজ করে। কোথাও কেটে গেলে বা পুড়ে গেলে সেখানে কুচি করা গাজর বা সিদ্ধ করা গাজরের পেস্ট লাগিয়ে নিন। এতে জীবাণু সংক্রমণ হবার সম্ভাবনা কমবে।

৮. গাজরে থাকা আন্টি অক্সিডেন্ট মস্তিস্ক কোষের স্বাভাবিক সংবেদনশীলতা রক্ষা করে ও সজীবতা বজায় রাখে। এটি বৃদ্ধ বয়সে মস্তিস্কের আলঝেইমার রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে।

৯. দাঁত ও মাড়ির যত্নেও গাজর অতুলনীয়। এর জীবাণু প্রতিরোধ ক্ষমতা মুখের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে। এছাড়া গাজর মাড়িকে ক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা করে।

১০. গাজরের ভিটামিন এ লিভারে গিয়ে শরীর থেকে নানা ধরনের টক্সিন জাতীয় খারাপ উপাদান বের করে দেয়। এছাড়া গাজর লিভার থেকে অতিরিক্ত চর্বি সরিয়ে ফেলতেও সাহায্য করে।