$wpsc_last_post_update = 1574076927; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_pages[ "search" ] = 0; $wp_cache_pages[ "feed" ] = 0; $wp_cache_pages[ "category" ] = 0; $wp_cache_pages[ "home" ] = 0; $wp_cache_pages[ "frontpage" ] = 0; $wp_cache_pages[ "tag" ] = 0; $wp_cache_pages[ "archives" ] = 0; $wp_cache_pages[ "pages" ] = 0; $wp_cache_pages[ "single" ] = 0; $wp_cache_pages[ "author" ] = 0; $wp_cache_hide_donation = 0; $wp_cache_not_logged_in = 0; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_clear_on_post_edit = 0; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_hello_world = 0; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_mobile_enabled = 1; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_cron_check = 1; //Added by WP-Cache Manager ?> $wpsc_last_post_update = 1574076927; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_pages[ "search" ] = 0; $wp_cache_pages[ "feed" ] = 0; $wp_cache_pages[ "category" ] = 0; $wp_cache_pages[ "home" ] = 0; $wp_cache_pages[ "frontpage" ] = 0; $wp_cache_pages[ "tag" ] = 0; $wp_cache_pages[ "archives" ] = 0; $wp_cache_pages[ "pages" ] = 0; $wp_cache_pages[ "single" ] = 0; $wp_cache_pages[ "author" ] = 0; $wp_cache_hide_donation = 0; $wp_cache_not_logged_in = 0; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_clear_on_post_edit = 0; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_hello_world = 0; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_mobile_enabled = 1; //Added by WP-Cache Manager $wp_cache_cron_check = 1; //Added by WP-Cache Manager ?> যে ৭টি কারনে ইফতারে খেজুর খাবেন | সুস্বাস্থ্য ২৪
খাদ্য ও পুষ্টি

যে ৭টি কারনে ইফতারে খেজুর খাবেন

এমবিবিএস, বিসিএস। মেডিকেল অফিসার, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পাকুন্দিয়া, কিশোরগঞ্জ।

ইফতার মানেই খেজুর। খেজুর ছাড়া ইফতার কল্পণাই করা যায় না। খেজুর খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি এর পুষ্টিগুণও অনেক। খেজুরের মধ্যে আমিষ ও শর্করা ছাড়াও রয়েছে ক্যালসিয়াম, সালফার, আয়রন, পটাশিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, কপার, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন বি-৬ ও ফলিক এসিড। চলুন ইফতারে খেজুর খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নেই-

১. খেজুর শক্তিবর্ধক। ইফতারের সময় কয়েকটি খেজুর খেয়ে নিলে শরীরে বেশ শক্তি পাওয়া যায়।

২. খেজুর ডিহাইড্রেশন বা শরীরের পানিশূন্যতা রোধ করে।

৩. খেজুর রক্তপ্রবাহে গতি সঞ্চার করে এবং হৃৎপিণ্ডের কর্মক্ষমতা বাড়ায়।

৪. রোজায় অনেকেরই খাবার পরিপাকে সমস্যা দেখা দেয়। খেজুর খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য রোধ করে।

৫. খেজুর শরীরে সোডিয়াম-পটাশিয়ামের ভারসাম্য রক্ষা করে।

৬. খেজুর ক্ষুধার তীব্রতা কমায় এবং পাকস্থলীকে কম খাবার গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করে। ফলে এটি সহজেই মুটিয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করে।

৭. খেজুরে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম থাকে যা হাড়কে মজবুত করে।