স্বাস্থ্য

রেড আই বা চোখ লাল হওয়ার ১০টি কারন

রেসিডেন্ট (এমএস-চক্ষু), জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, ঢাকা।

রেড আই বা চোখ লাল হওয়া নিয়ে আমাদের দেশে অনেকের মধ্যেই ব্যাপক ভুল ধারণা রয়েছে। সাধারণত কারো চোখ লাল হলে এবং চুলকালে চোখ উঠেছে বলে ধরে নেয়া হয়। ডাক্তারি ভাষায় যাকে বলে কনজাংটিভাইটিস (Conjunctivitis)। এক্ষেত্রে অনেকে নিজে নিজেই ফার্মেসি থেকে চোখের ড্রপ কিনে ব্যবহার করা শুরু করে দেন। আমাদের দেশে ব্যাক্টেরিয়া জনিত কারনে চোখ ওঠা বা ব্যাকটেরিয়াল কনজাংটিভাইটিস (Bacterial Conjunctivitis) বেশি হয়ে থাকে। এজন্যই ওষুধের দোকানদাররা বেশিরভাগ সময় রোগীকে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল ড্রপ দিয়ে থাকেন। এতে হয়ত সমস্যাটি ৪-৫ দিনের মধ্যেই সেরে যায়। তবে আশঙ্কার ব্যাপারটি হলো শুধুমাত্র কনজাংটিভাইটিস (Conjunctivitis)-এর কারনেই চোখ লাল হয় না। আরো অনেক রোগের কারনেই চোখ লাল হতে পারে। সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত ড্রপ ব্যবহার করলে চোখের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। তাই চলুন জেনে নেই, কোন কোন কারনে চোখ লাল হতে পারে:

রেড আই (RED EYE) বা চোখ লাল হওয়ার কারন সমূহ:

১। যেকোন ভাবে কর্নিয়া আঘাতপ্রাপ্ত হলে। কর্নিয়া হলো চোখের মণির ঠিক সামনের স্বচ্ছ পর্দা। এক্ষেত্রে চোখের ড্রপ ব্যবহার করলে চোখের মারাত্মক ক্ষতির সম্ভাবনা থাকতে পারে।

২। চোখের অ্যালার্জি জনিত কারনে।

৩। ব্লেফ্রাইটিস (Blepharitis) বা চোখের পাতায় প্রদাহ।

৪। ড্রাই আই (Dry Eye) বা চোখে পানির পরিমাণ হ্রাস পেলে।

৫। আইরাইটিস (Iritis) বা আইরিশের প্রদাহ।

৬। ক্যারাটাইটিস (Keratitis) বা কর্নিয়ার প্রদাহ।

৭। গ্লুকোমা হলে বা চোখের আভ্যন্তরীণ চাপ বেড়ে গেলে।

৮। একট্রপিওন (Ectrpion) ও এনট্রপিওন (Entropion) হলে। অর্থাৎ চোখের পাতার যথাক্রমে বাইরের এবং ভেতরে দিকে বেঁকে গেলে।

৯। ইউভিআইটিস (Uveitis) বা চোখের মধ্যপর্দায় প্রদাহ।

১০। ক্যালাজিওন।