খাদ্য ও পুষ্টি

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে প্রতিদিনকার যেসব খাবার

এমবিবিএস। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ থেকে চিকিৎসাবিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর বেসরকারী ক্লিনিকে মেডিকেল অফিসার হিসাবে কর্মরত।

বলা হয়ে থাকে স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। অথচ স্বাস্থ্যের ব্যাপারে আমরা অনেকেই তেমন সচেতন নই। এমনকি সুস্বাস্থ্যের জন্য মাত্র পনেরো মিনিট খরচ করতেও রাজি নই অনেকে। অবশ্য আধুনিক ব্যস্ত জীবনে আলাদা করে শরীরের দিকে নজর দেয়ার সময়ই বা কোথায়। তবে চিন্তার কিছু নেই। প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় কিছু পুষ্টিকর খাদ্য উপাদান যোগ করলেই সুরক্ষিত থাকবে আপনার স্বাস্থ্য। বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধের কাজটি করে মূলত ইমিউন সিস্টেম। দেহের ভিতরে ক্ষতিকর ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া এবং অন্যান্য জীবাণুর বিরুদ্ধে প্রতিমূহুর্তে লড়ে যাচ্ছে এই ইমিউন সিস্টেম। যার ইমিউন সিস্টেম যত শক্তিশালী তিনি তত বেশি নীরোগ থাকতে পারেন।
চলুন জেনে নেই প্রতিদিনের খাদ্যাভাসে যে উপাদানগুলো থাকলে ইমিউনিটি সিস্টেম আরো শক্তিশালী হবে এবং বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা-
• সাধারণত সব ধরনের প্রাকৃতিক ও তাজা খাবারই ইমিউন সিস্টেমকে শক্তিশালী করে। দৈনন্দিন খাবার তালিকায় সবুজ শাক-সবজির সাথে অতিরিক্ত এক-দুই টুকরো আদা, দারুচিনি ও এলাচি যোগ করলে বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। এতে হজম ক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়।
• এক ফালি তরমুজ আর কয়েকটা পুদিনা পাতা একসাথে সাথে মিশিয়ে শরবত বানিয়ে খেতে পারেন।তরমুজে লাইকোপিন নামক একপ্রকার খাদ্য উপাদান আছে যা এন্টিঅক্সিডেন্ট হিসাবে কাজ করে। এটি বুড়িয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করে এবং কোষের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।
• বাঁধাকপি, কাঁচা কলা ও ব্ল্যাকবেরির মত খাবারগুলো শরীরের জন্য অত্যন্ত কার্যকর। এগুলো রোগের মাত্রা কমিয়ে দেয় এবং দ্রুত রোগমুক্তিতে ভূমিকা রাখে।
• লেবু জাতীয় যেকোন খাবার ইমিউন সিস্টেমের জন্য খুবই কার্যকর। দুই কাপ বাঁধাকপি, প্রয়োজনমত পানি, দুইটা কমলা, কয়েক টুকরা আনারস ও কয়েকটা লেবু একসাথে মিশিয়ে সহজেই একটি রেসিপি তৈরী করতে পারেন। দেহের রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়াতে এই রেসিপির কার্যকারিতা বেশ ভালো।
• এক কাপ আনারস থেকে ভিটামিন বি-৬ এর দৈনিক চাহিদার শতকরা ৫২ ভাগই পাওয়া যায়। এছাড়া আনারস স্নায়ুর ক্ষয় রোধ করে।
• প্রতিদিনের খাবার তালিকায় রসুন যোগ করে সর্দি-কাশির হার দুই-তৃতীয়াংশ পর্যন্ত কমানো সম্ভব। তাছাড়া রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ও যৌন ক্ষমতা বৃদ্ধিতেও রসুন অত্যন্ত কার্যকর।
• দুধ চা না খেয়ে ব্ল্যাক চা খাবার অভ্যাস করুন। কারন ব্ল্যাক চা শরীরে এক ধরনের ইন্টারফেরন তৈরি করে, যা ইমিউন সিস্টেমকে আরো শক্তিশালী করে তোলে।
• খাদ্য তালিকায় মাশরুমও রাখতে পারেন। এটি শ্বেত রক্তকণিকার পরিমাণ বাড়াতে সাহায্য করে। ফলে ইমিউন সিস্টেম হয়ে উঠে আরো শক্তিশালী ও কার্যকর।