স্বাস্থ্য

স্তন বা ব্রেস্ট ক্যান্সারের ১০টি লক্ষণ

রেসিডেন্ট (শিশু সার্জারী), সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, সিলেট।

স্তন ক্যান্সার বা ব্রেস্ট ক্যান্সার নারীদের জন্য ভয়াবহ এক রোগের নাম। আমাদের দেশে দিন দিন এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ক্রমেই ভয়ংকর মৃত্যু ঝুঁকির কারন হয়ে দাঁড়াচ্ছে এই ক্যান্সার। সাধারণত স্তনের কিছু কোষের অস্বাভাবিক ও অনিয়ন্ত্রিত বৃদ্ধিকেই স্তন ক্যান্সার বলা হয়। স্তন ক্যান্সার এ ভুগে মৃত্যুর ঘটনা হয়তো অতোটা চোখে পড়েনা। কিন্তু অবাক করা বিষয় হচ্ছে, জরায়ু ক্যান্সারের থেকেও স্তন বা ব্রেস্ট ক্যান্সারের মৃত্যুহার বেশি এবং তা দিন দিন আরো বেড়ে চলেছে।

কাদের ঝুঁকি বেশি:

১. যাদের মাসিক খুব কম বয়সে শুরু হয় কিংবা দেরিতে শেষ হয়।
২. মেনোপজ বা মাসিক বন্ধ হওয়ার পরে বেশি হয়

৩. ফর্সা মেয়েদের আক্রান্ত হওয়ার হার তুলনামূলকভাবে বেশি
৪. পরিবারে মা, খালা কারো হয়ে থাকলে হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়
৫. বন্ধ্যাদের ক্ষেত্রে বেশি হয়

লক্ষণসমূহ:
১. স্তনে শক্ত চাকার মত অনুভূত হয় যা অনেকটা পাথরের মত শক্ত।

২. এটা সাধারণত স্তনের উপরের দিকে এবং বাইরের অংশে হয়ে থাকে।।

৩. চাকাটি একদম শক্ত হয়ে লেগে থাকবে, চাইলেই একে নাড়ানো যাবে না।

৪. স্তনের বোঁটা থেকে অকারণে তরল জাতীয় পদার্থ নিঃসরন হতে পারে,

৫. স্তনের বোঁটা থেকে রক্তও পড়তে পারে

৬. বগলে কিংবা ঘাড়ে কোন চাকা অনুভূত হতে পারে

৭. পুরো স্তনের বর্ণ বা রঙ বদলে যেতে পারে। মনে রাখতে হবে, স্তনের স্বাভাবিক রঙ ও আকার পরিবর্তন অনেক বিপদজনক লক্ষণ।

৮. অনেক সময় স্তনের ত্বক লালচে যেমন: কমলার খোসার মতো এবং গর্ত-গর্ত হয়ে যায়

৯. সাধারনত ব্যথা অনুভূত হয় না

১০. অনেকের ক্ষেত্রে স্তনের বোঁটা ভিতরের দিকে ঢুকে যেতে পারে এবং স্তনের বোঁটার চামড়া উঠে যেতে থাকে।

যেসব কারনে স্তনে ব্যথা হতে পারে:
১. মাস্টাইটিস বা স্তনের প্রদাহ

২. ব্রেস্ট অ্যাবসেস বা স্তনে ফোঁড়া জাতীয় সমস্যা

৩. ফাইব্রো এডেনোসিস

৪. সিস্ট

মনে রাখতে হবে, এগুলো কোনটাই ক্যান্সার নয়। তাই স্তনে ব্যথা অনুভূত হলেই ভয় পাওয়ার কিছু নেই।